Post has attachment
#স্মরণকালের ভয়াবহ #পাহাড় ধসে চার #সেনাসদস্যসহ শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কয়েকশ।

পাহাড়ধসে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে চট্টগ্রামের সঙ্গে তিন জেলার সড়ক যোগাযোগ।বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে বিদ্যুৎব্যবস্থা। ধ্বংস হয়ে গেছে বহু ঘরবাড়ি। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অনেকে। স্থানীয়রা ধারণা করছেন, হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। ঘটনার পর থেকে সেনাবাহিনী ও স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টরা উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। সড়ক যোগাযোগ বিপর্যস্ত হয়ে পড়ায় উদ্ধার তৎপরতায় বিঘ্ন হচ্ছে বলে উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন। গতকাল বিকালে সেনাপ্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হকও ঘটনাস্থলে যান।
দুদিনের টানা বর্ষণের ধারাবাহিকতায় সোমবার দিবাগত রাতে রাঙ্গামাটি, চট্টগ্রাম ও বান্দরবানে পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে। টানা বৃষ্টির কারণে গতকাল সকালেও কিছু এলাকায় পাহাড়ধসে পড়ে। সকালে পাহাড়ধসে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া সড়কে উদ্ধারকাজ চালাতে গিয়ে মাটিচাপা পড়েন সেনা সদস্যরা। সেখানে দুই কর্মকর্তাসহ চারজন মারা যান। আহত হন ১০। তাদের পাঁচজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে আনা হয়েছে। #রাঙ্গামাটি সদর, #কাউখালী, কাপ্তাই জুরাছড়ি ও #বিলাইছড়ি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বেশি ধসের ঘটনা ঘটেছে। তিন জেলার বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে অন্তত চার হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। পাহাড়ধসে হতাহতের ঘটনায় প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া শোক প্রকাশ করেছেন।
Photo

Post has attachment
Photo

Post has attachment
Photo

Post has attachment
Photo

Post has attachment
Photo

Post has attachment
Photo

Post has attachment
Photo

Post has attachment
Photo
Wait while more posts are being loaded