Profile cover photo
Profile photo
Maitrayee Sengupta
28 followers -
M.A. in bengali from N.B.U .Living in Jalpaiguri
M.A. in bengali from N.B.U .Living in Jalpaiguri

28 followers
About
Posts

নব জন্ম

এক যে ছিলো কবি
কবিতা ছিলো তার প্রথম সহচর!
কলমে তার উঠে আসতো
প্রতিবাদ,বিদ্রোহ,
আর কিছু আশা...
জীবনের আরেকটা রূপ
তার চোখে তখনও ধরা পড়েনি.
মনের কোন কোণে যে গোপনে
সে বাসা বেঁধে ছিলো তার খোঁজ
কবি করেনি কখনো..
হঠাত্ একদিন কোনো এক
অপরিচিত হাতের ছোঁয়ায়
তার মনের সেই গোপন কোণে
জ্বললো আলো!
প্রদীপের সেই স্নিগ্ধ আলোয়
সেখানে জেগে উঠলো এক
অনামিকা!
যাকে সে চিনতো না কোনোদিন
এই কণ্যার আবদার আছে,
অভিমান আছে,
সে চায় কোনো একজনের চোখে
সে হয়ে উঠুক অনন্যা!
তার চোখেই সে খুঁজে পাক
নিজের নাম!
এই অনামিকা কবির কাছে
এক্কেবারে নতুন ,
এক্কেবারে আনকোরা,
এ অনুভব যেন জলভরা নদীর স্রোতের মতো উচ্ছ্বল,অশান্ত!
সে ভেবেছিল এ পথ দেখালো যে
তার হাত ধরেই পথ চলবে...
কিন্তু তা যে হবার নয়..
জীবনে যে পথ দেখায়
সে কি কভু সহচর হতে পারে?
তাই কবিকে পথের সম্মুখ থেকেই
সে জানালো বিদায়!
মনে হলো বৃথা হলো
কবির সব সজ্জ্বা
বৃথা হল তার অনামিকার জন্ম!
হঠাত্
মনের মাঝে কে যেন বলে উঠল--
''কবিতা লিখুন আবার,
কথা দিন,কবিতা লিখবেন--''
তাই সমস্ত দ্বিধা,সংশয় কাটিয়ে
সমস্ত অপরিচয়ের সংকোচ কাটিয়ে
সাদা পাতা ভরে দিলো তার
নীল কলমের আঁচড়ে!
আঁকলো তার নতুন সত্তার ছবি
একান্ত গোপনে---
শুধুমাত্র নিজের তরে,
নিজের করে,
কাউকে পাবার আশায়...


মৈত্রেয়ী



Shared from Google Keep

তোমায় ভালোবেসে
অনন্যা বলে ডেকেছিলে সেদিন..
যদিও জানতাম ---
এক অতি সাধারণ মেয়ে আমি..
তোমায় ভোলাবার মতো
না আছে আমার রূপ না গুণ
তবু তোমার ঐ একটা ডাক
স্পর্ধা জাগিয়ে ছিলো !
নিজেকে অসামান্যা ভাবার স্পর্ধা!
তাই তোমার দেওয়া নামের সাহসে ভর করেই তোমায় বলেছিলাম..
''রক্তিম,তোমার চোখে আমি যে আমার সর্বনাশ দেখি!''
তুমি হেসে বললে...
''আমার অনন্যা!
তুমি তো শুধু আমার অনন্যা নও..
আমি তোমার চোখে দেখি
হাজার মানুষের স্বপ্ন!
আর তোমার রক্তিম...
সেও কি শুধু তোমার?
তোমার কলমে যে তার জন্ম
আরো হাজার মানুষের রক্তে
প্লাবন ডাকার জন্যে..
তাকে কি আর বাঁধা যায় প্রিয়ে?''
তোমার এই কয়েকটি শব্দের ছোঁয়া
আবারও আমার সাধারণ ভাবনাদের
দিলো অসাধারণত্ব!
হাজার মানুষের স্বপ্ন দেখার ,
স্বপ্ন দেখানোর সাহস যোগালো আবার
হয়তো সর্বনাশ নয়...
হয়তো আমার জীবনে তুমি
আমার ভয় ভাঙা সেই নাও
যে আমায় উত্তাল সাগর পার করায়!
আর বলতে শেখায়--
''তোমায় ভালোবেসে রক্তিম
আমি হাজার মানুষের কাছে আসি
আমি স্বপ্ন দেখতে শিখি...
ভালোবাসতে শিখি!


মৈত্রেয়ী


আকাশে ফেরা


কখনো কখনো আকাশের দিকে চোখ মেলে নিঃসঙ্গ পাখির উড়ে চলা দেখতে দেখতে মনে হয় ...
আমরাও কতো একলা...
হাজার মানুষের ভিড়ে কেটে যায় কতো একলা দুপুর,কতো একলা রাত আসে...
তারপর আবার আসে আরও একটা নিঃসঙ্গ দিন..
তবু আমরা হাত বাড়াই,তবুও আমরা বন্ধু খুঁজি..
তারপর আবার ব্যর্থ হয়ে আকাশে চোখ মেলে দি..

একলা

প্রজাপতিটা কাঁচের জানালার ওপারে ,
উড়ছে , একলা---
আমিও ঘরে একলা ---
বাইরে ব্যস্ততা , ভীষণ ব্যস্ততা!
আমার কোনো ব্যস্ততা নেই!
একলা আমি ,আর জানালার ওপারে---
একলা ও,
ব্যস্ত ও,ব্যস্ততা ,অস্থিরতা ওরও ধর্ম
কিন্তু আমি কেন ব্যস্ত নই ?
আমার মনটা এতো একলা কেন?
এখনও নিসঙ্গ দুপুরে ---
আমাকে শুধুই দেখতে হয় ,
সকলের ব্যস্ততা---
আমিও তো ভালোবাসি এই ব্যস্ততা ,
ভালোবাসি প্রাণোচ্ছ্বলতা ,
ভালোবাসি প্রজাপতিটার ডানা ঝাপটানোর শব্দ
ভালোবাসি আলোর ঘ্রাণ,
তবুও মনের অন্ধকার কেন কাটে না?
কেন নিজেকে বহু দূর দেশে---
নির্বাসিত রাজকন্যার মতো মনে হয়!
ভালোবেসেও কেন পাইনা তার নাগাল!
শুধুই পড়ে দীর্ঘ নিঃশ্বাস !
আর, বারে দূরত্ব ---
আরো ---আরো ---আরও
দিন যায় ----
হেরে যাই ,নৈরাশ আসে
হাত দিয়ে চেপে ধরে চোখ ,
তবুও
আমি ভালোবাসি আলো ,
ভালোবাসি রঙ ,
ভালোবেসেই কাটাই ,
একলা দিন ,
একলা রাত-----

জীবনের সংঞ্জা

শুনছো কি? তোমায় ওরা ডাকছে
কে,কেন,কোথায় জানিনা !
হতে পারে কোন গুহার ভিতর
কিংবা সবুজ ঘাসের বনে!
কিংবা একটা বন্ধুর রাস্তার মাঝখানে !
তুমি পিছনে ফির না!
হতে পারে ওরা সুসময়ের বন্ধু
কিংবা শত্রুপক্ষও হতে পারে
মেশিন গানটা তাক করে আছে তোমার দিকে !
কি করবে তুমি জানিনা...
শুধু জানি যা তুমিও জান ,একটাই জীবন এভাবেই বাঁচতে হয়!
কিন্তু সত্যিই কি এভাবে বাঁচা যায় ?
যদি যায় তবে কেন হলাম মান হুঁশ সম্পন্ন মানুষ ?
যদি হলামই তবে কি পারবো না একসাথে বাঁচতে ?
পারবো , যদি তুমি আমার হাতটা ধরো আর আমি ধরি অন্যের হাত...
এসো না সকলে মিলে তৈরী করি
জীবনের নতুন সংঞ্জা !

তারা কাঁদছে

বাইরে বৃষ্টি পড়ছে
আকাশে মেঘেরা সারা রাত কেঁদে কেঁদে সারা হয়েছে ,এখনও কাঁদছে ...
সর্বহারা মানুষের মতো তারা কাঁদছে
অঝরে কাঁদছে..
সব হারিয়েছে তারা
তাদের উড়ে বেড়ানোর,ভেসে বেড়ানোর
সূর্যের সাথে লুকোচুরি খেলার অধিকার তাদের নেই
তাই আজ নিজেকে নিঃশেষ করে
তারা কাঁদছে,
অঝরে কাঁদছে...

Post has attachment
Photo
Add a comment...

ফিরে আয়

কিছু বৃষ্টির ফোঁটা গায়ে মেখে
কিছু মেঘলা রাত একলা জেগে
অনেক স্বপ্ন বুকে নিয়ে
অনেকটা পথ পেড়িয়ে এসেছি আমরা !
তবু কেন মনে হয় অতীত আমায় ডাকে ?
এ সময় আমার জন্য নয় ,
আমি যেন এ যুগের মেয়ে নই
আমি যেন কোন এক পুরাকাল থেকে
অতীতের জনহীন প্রকৃতির কোল থেকে উঠে এসেছি! উঠে এসেছি সেই সময় থেকে
ই মানুষকে চালায় না যন্ত্র
যেখানে মানুষ চালিত হয় মনুষ্যত্বের দ্বারা
যেখানে আছে মানুষে মানুষে ভালবাসা !
ভালবাসার জোরেই যেখানে মানুষ বাঁচে !

তাই চারিদিকে যখন অগ্রগতির গতি
মানুষ যখন যন্ত্র চালিত জীব
তখন আমার মনে হয় ফিরে যাই
ফিরে যাই অতীতের সেইদিন গুলিতে ...
যেখানে মানুষ চালিত হয়
মনুষ্যত্বের দ্বারা!
একা নয়,একসাথে হাত ধরে
ফিরে চল বন্ধু ,ফিরে চল অতীতের সেই দিনগুলিতে,সেই ভালবাসার পথে
সেই প্রকৃতির কোলে,
ফিরে চল বন্ধু,ফিরে চল...

Post has shared content
বান ভাসী

সেই প্রথম দিন থেকেই তোমায় ভালবাসে ছিলাম
তুমি ছিলে আমার বর্ষার ভরা তিস্তা---
তখন তোমারও যৌবন
স্রোতের তোরে ভাঙছো পাড় ,
ডুবছে তীরের জনপথ !
তবুও তোমার সেই উচছ্বল স্রোতেই
আমি গা ভাসিয়ে ছিলাম ..
জানতাম না তোমার বুকের মাঝে
লুকিয়ে আছে গোপন ঘূর্ণিপাক !
তুমি গ্রাস করলে আমার তরী
হারালাম অবলম্বন---
এখন আমার ভগ্ন হৃদয়,
তোমার তীর শুধুই বালুকাময় ---
তুমি সরে গেছ অনেক দূরে
আমার হৃদয়ের কাছ দিয়ে আর
বয়ে যায় না তোমার কোনো ধারা
তবু এ মন ভালোবাসে তোমাকেই
তবু হায়! সেই উত্তাল স্রোতেই
হারাতে চাই আমার আহত মন
আর একবার অবলম্বন খোঁয়াতে চাই
খুঁজে পেতে চাই তোমায়
সেই পুরোনো রূপে , সেই পুরোনো ভাবে!
জয়

ছোট্ট জীবনটা অথচ কত রঙে পূর্ণ ,
ছোট্ট চাওয়া পাওয়া অথচ বড়ই কঠিন তা রক্ষা করা
যদি মনে কর পারবে,
তবে তুমি পারবে ,
পারবেই তা রক্ষা করতে! কিন্তু -
যদি মনে কর হেরে গেছো
তবে একবার পিছনে ফিরে দেখ
দেখবে পৃথিবী দু হাত বাড়িয়ে তোমায় ডাকছে
তোমার জয়ের জন্যেই সে অপেক্ষায়...
Add a comment...

জয়

ছোট্ট জীবনটা অথচ কত রঙে পূর্ণ ,
ছোট্ট চাওয়া পাওয়া অথচ বড়ই কঠিন তা রক্ষা করা
যদি মনে কর পারবে,
তবে তুমি পারবে ,
পারবেই তা রক্ষা করতে! কিন্তু -
যদি মনে কর হেরে গেছো
তবে একবার পিছনে ফিরে দেখ
দেখবে পৃথিবী দু হাত বাড়িয়ে তোমায় ডাকছে
তোমার জয়ের জন্যেই সে অপেক্ষায়...
Wait while more posts are being loaded