Profile cover photo
Profile photo
Sumon Talukder
1,804 followers
1,804 followers
About
Sumon's posts

Post has attachment

Post has attachment

Post has shared content
একদিন এক ধনী পিতা তার ৮ বছরের সন্তান কে নিয়ে ঘুরতে বের হলেন। বাবা চেয়েছিলেন তার ছেলেকে বোঝাতে যে একজন মানুষ কি পরিমান দরিদ্র হতে পারে। তারা একটি গরিব পরিবারের Farm এ সময় কাটালেন। Farm থেকে বাড়ি ফিরার সময় বাবা ছেলে কে বললেন, "দেখলে তারা কি গরিব... তাদের কাছ থেকে কি শিখলে??"
...
ছেলে জবাব দিল... " আমাদের ১ টি কুকুর... তাদের ৪ টি। আমদের ১ টি ছোট Swimming Pool আছে ........ তাদের বিশাল নদী। আমাদের রাতে বিভিন্ন ধরনের বাতি আলো দেয়... তাদের রাতে আলো দেয়ার জন্য আছে অসংখ্য তারা। আমরা খাবার কিনি... তারা খাবার বানায়। আমদেরকে Protect করার জন্য আছে ঘরের দেয়াল... তাদের Protect করার জন্য আছে তাদের অসংখ্য বন্ধু ও প্রতিবেশী। আমদের আছে বিভিন্ন Famous লেখকের বই... তাদের আছে Bible, Quran...।

Thanks Dad, আমরা যে খুবই দরিদ্র তা আমাকে দেখানোর জন্য!!!!!"

MORAL LESSON: It's not about money that make us rich, it's about simplicity of having Allah in our lives....!!!!!!!!

Post has attachment
No Comment's !!!!! 

ইশতিয়াক চয়ন

বেইলি রোডে গিয়েছিলাম এক কাজে, ফেরার সময় ফার্মগেট আসলাম। ফার্মগেটে ওভারব্রীজ থেকে নেমে আসার সময় বোরকা পরা মধ্যবয়সী এক মহিলা আমাকে হোটেলে যাবার অফার জানাল। আমি তার আহ্বান শুনেও না শোনার ভান করতে পারতাম।কিন্তু আমি কেন যেন উনাকে জিজ্ঞাস করে ফেললাম,"আপনি তো আমার মায়ের মত হবেন!আপনার কি লজ্জা করে না?" জানিনা আমার প্রশ্ন কতটা যুক্তিসংগত! উনি কোন উত্তর না দিয়ে দ্রুত আমার কাছ থেকে দূরে সরে গেলেন।কিন্তু উনার চোখের দিকে তাকিয়ে আমার মনে হয়েছিল সেখানে কোনো জৈবিক তাড়না নেই, নেই কোনো পাপবোধ। আছে কেবল একরাশ অসহায়ত্ব আর ক্ষুধার তাড়না। ক্ষুধার জ্বালা মেটাতেই দিনে দুপুরে উনি আজ এতটা বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন।

ব্যাপারটা নিয়ে কিছু ভাবতে না চাইবার পরও একরাশ চিন্তা আমার মাথায় ভর করেছে আজ….

মায়ের বয়সী একজন মহিলা কিভাবে আমাকে এমন অনৈতিক একটা কাজে আহবান জানাতে পারে? এই কাজটা যে অনৈতিক, সে অনুভূতি কি তার কখনোই ছিল না? অবশ্যই ছিল। তাহলে কোন কারণে সে এই ঘৃণ্য পথে পা বাড়িয়েছে?

সমাজের সচেতন নাগরিক হিসেবে আমরা কি নিজের বিবেককে কোন প্রশ্ন করলে এর কোন জবাব পাব? আমি তো পেলাম না। সবাই বলে কেউ কারও দুঃখ বুঝতে পারে না। কিন্তু আমরা তো চেষ্টা করতে পারি। পতিতা শব্দ শুনলেই আমরা ছি ছি করি,মাগী বলে তাদের গালি দেই। কিন্তু আমরা কি কখনও ভেবে দেখেছি একজন মানুষ কতটা অসহায় হলে এই পর্যায়ে নামতে পারে? আজ হয়ত আমি উনার জায়গায় নেই কিন্ত আমি জানি না আমি কি করতাম উনার জায়গায় থাকলে !

নারীবাদীরা এসব মা-বোনের পতিতাবৃত্তির বিপক্ষে অনেক কথা বলেন , কিন্তু এই পতিতাবৃত্তির পেছনে যেসব কারণ সেগুলোর মূলোৎপাটনে নিয়ে তাদের মুখে কোন কথা শোনা যায় না। পতিতাবৃত্তি বন্ধ করতে হলে নারীদের সম্মানজনক জীবিকা, উপযুক্ত পারিশ্রমিকের ব্যবস্থা করতে হবে, নারীকে পণ্য হিসেব উপস্থাপনের সকল রাস্তা বন্ধ করবার লক্ষ্যে সংস্কৃতির উন্নয়ন ঘটাতে হবে এবং অশ্লীলতা বন্ধ করতে হবে। কিন্তু সবাই শুধু নিজেদের স্বার্থ নিয়েই আছে। পতিতাদের মতো কুলাঙ্গাররা কি আর তাদের চোখে মানুষের পর্যায়ে পড়ে?? জানি না এতসব কথা কিন্ত আজ আমার খুব ইচ্ছা করছে তাদের বলতে সমাজের আসল পতিতা আমরা !!

দুই বছর আগের ঘটনা এটি। এর মাঝে চলে গেছে অনেক সময় কিন্তু ফার্মগেট সেই একই আছে। হঠাত ইচ্ছে হল তাই শেয়ার করলাম। নো অফেন্স।

আহমাদ কামাল কল্লোল
যারা যারা পুলিশকে দোষারোপ করছেন, তাদের মনে রাখতে হবে পুলিশরাও মানুষ। তাদের উপর জামাত শিবির হামলে পড়েছে গত ৪ মাস ধরে। পুলিশ এতদিন অনেক নমনীয় ছিলো। কিন্তু হাজার হাজার উন্মত্ত মানুষ যখন পাশবিক আক্রোশে পুলিশকে ঘিরে ধরে পিটিয়ে মারে, তখন কিন্তু কারো গায়ে লাগেনা।
জেনোসাইড আর সন্ত্রাসের পার্থক্য ধরতে হবে আমাদের। ৭১রে নিরীহ মানুষের উপর হামলে পরেছিল পাকিস্তানি হায়েনা আর জামাতের পিশাচরা। এখন জামাত শিবির পিশাচের মত হামলে পড়েছে দেশের ওপর, পুলিশের ওপর। পুলিশের ওপর আক্রমন মানে স্টেটের ওপর আক্রমন।
গত রাতে চাদে সাইদীর ছবি দেখা গেছে বলে বগুড়ায় যে ভাবে ভর রাত ৩টা থেকে জামাত মানুষকে জড়ো করেছে, যে ভাবে হাজার হাজার হিংস্র মানুষ জামাতের উস্কানিতে পাগলের মতন লাঠি নিয়ে হামলে পড়েছে থানা, সরকারী প্রতিষ্ঠান আর পুলিশের ওপর, সেটা ঠেকাতে গুলি বর্ষণ ছাড়া আর কিচ্ছু করার উপায় ছিলনা পুলিশের। পুলিশ বার বার মাইকে বলেছে, "আপনারা শুনুন, আমরা একই মায়ের সন্তান, আমরা কেউ কারো রক্ত দেখতে চাইনা। দয়া করে সরে যান, আমাদের বাধ্য করবেন না।" তো পুলিশ আর কি করবে? বুক পেতে দেবে পাশবিক উন্মত্ততার ওপর? পুলিশের গায়ে কি রক্ত নাই? ওগো জন্ম কি মায়ের পেতে হয় নাই? ওগো পরিবার নাই?

জামাত পুলিশ হত্যা করবে, অন্য ধর্মের মানুষদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেবে, লুঠ করবে, মেয়েদের লাঞ্ছিত করবে, সাধারন মানুষকে উস্কানি দেবে আর আমরা ঘরের মধ্যে থেকে পুলিশরে গাল দেবো।

সন্ত্রাস আর জেনোসাইডের পার্থক্য না জানলে আগে আইন কানুন পরেন, তারপর বক্তিমা দিয়েন।

Post has attachment

Post has attachment

Ref    : SCNS/JAN/SO/13


25-January-2013

 

  

Service Offer from Scan Computer


Dear Sir/madam,

 

Greetings from SCAN COMPUTER!!!


We are pleased to introduce ourselves as a professional team in the computer sales and servicing arena.


SCAN COMPUTER team has a strong background in all computer related services and excellent relation with importers, which allow us to provide complete customer satisfaction for all of our clients and make sure that they will get the best support for any problem they have to face regarding their computer.

 

We are offering you service for hardware troubleshooting (Problem with your printer, scanner, and other output device), networking, accessories sales, PC and Laptop servicing (incl. virus removal), uninterrupted broadband internet service.


We have a special Monthly Basis offer for you, where a deal can be signed under conditions. If you have at least 2 (or more) computers, you can make a contract with us to take care of your computers for a negotiable monthly payment.

 

We can even Serve on Call. For computer related problems at your home or office just make us a call and we will be there within a short time.

 

We will be highly obliged if you consider our offer and let us serve you with utmost sincerity.


Your kind support will be highly appreciated. 
Photo

Post has attachment
We are offering you service for hardware troubleshooting (Problem with your printer, scanner and other output device), networking, accessories sales, PC and Laptop servicing (include virus removal).

SCAN COMPUTER 
236, New Elephant Road, Sheltech Sierra market 2nd Floor.
Dhaka bangladesh
Email:scancomputer@gmail.com
Photo

Post has shared content
lol
Wait while more posts are being loaded