Profile

Cover photo
ডাক্তার সাহেব
Attends Bangabandhu Sheikh Mujib Medical University
Lived in Bangladesh
1,240 followers|18,157 views
AboutPostsPhotosVideos

Stream

 
কাজের চাপ কমায় বেদানার রস
কাজের চাপে যদি দম বন্ধ হতে থাকে কিংবা কাজ দেখলেই বিরক্তি লাগে তাহলে এক গ্লাস বা ৫০০ মিলি বেদানার রস পান করে নিন। তাহলে কাজে আর চাপ বা বিরক্তি লাগবে না। এমনটিই দেখতে পেয়েছেন ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা এক সমীক্ষায়।
এ জরিপে অংশ নেন একদল স্বেচ্ছাসেবী। দুই সপ্তাহ ধরে তারা নিয়মিত বেদানার রস পান করেন। এ সমীক্ষায় নেতৃত্ব দেন ব্রিটেনের অ্যাডিনবাগের কুইন মার্গারেট বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ডা: এমাদ আদ দুজাইলি।
ব্রিটেনের ডেইলি মেইল জানিয়েছে, এ জরিপের ভিত্তিতে বলা যায়, যাদের ব্যস- সময় কাটাতে হয় তারা বেদানার রস নিয়মিত পান করতে পারেন। তাতে দেহের শ্রানি- দূর হবে এবং সহজেই চাঙ্গা ভাব তৈরি হবে। ডা: এমাদ আরো বলেন, বেদানার রসের নানা ধরনের গুণের কথা ক্রমেই প্রকাশিত হচ্ছে এবং এ নিয়ে আরো গবেষণা দরকার।
 ·  Translate
6
Bidita Rahman's profile photoAbdul Rakib Rabbe's profile photo
2 comments
 
hmmm........ good info.
Add a comment...
 
ফ্রিজে বেশি দিন গোশত রাখবেন না
ফ্রিজে ১০ দিনের বেশি গোশত সংরক্ষণ না করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, ফ্রিজে বেশি দিন গোশত রাখা হলে এর প্রোটিন নষ্ট হয়ে যায়, এমনকি তা বিষাক্তও হয়ে পড়তে পারে। পাকিস্তান ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্স গ্যাস্ট্রোলজিস্ট ওয়াসিম খাজা জানিয়েছেন, পেটের বিভিন্ন রোগ থেকে বাঁচার জন্য সব সময় তাজা ও স্বাস্থকর গোশত খাওয়া উচিত। ফ্রিজে বেশি দিন রাখা গোশত খেলে যকৃৎ, কিডনি ও মস্তিষ্কের নানা রোগ হতে পারে। তিনি বলেন, ফ্রিজে রাখা গোশত ভালোমতো রান্না করা না হলে ব্যাকটেরিয়ার বিস্তার খুব তাড়াতাড়ি হয়ে থাকে। তিনি গোশত সংগ্রহ ব্যাপারেও সতর্ক হতে পরামর্শ দেন। তিনি জানান, অসুস্থ প্রাণীর গোশতে প্রোটিন ও ভিটামিন থাকে না বরং এগুলো মানবদেহে বিভিন্ন রোগ ছড়ায়।
 ·  Translate
4
1
Monir hasan's profile photo
Add a comment...
 
খাদ্যগুণে সমৃদ্ধ মাশরুম
মাশরুম অত্যন্ত স্বাস্থপ্রদ একটি খাবার। দেহের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস দমনে মাশরুমের জুড়ি নেই। এতে রয়েছে প্রোটিন, ভিটামিন, মিনারেল, অ্যামিনো অ্যাসিড, অ্যান্টি বায়োটিক ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। নিরামিষভোজিদের জন্য এটা একটা মজাদার খাবার। পাশাপাশি মাশরুম পাসতা, ওমলেট, বিফ রোল, চিকেন স্যান্ডউইচ কিংবা ফিশ ফ্রাইয়ে ব্যবহার করলে স্বাদের সাথে বাড়ে খাবারের পুষ্টিগুণ।
মাশরুমে ভিটামিন বি আছে প্রচুর পরিমাণে। ভিটামিন বি খাদ্যকে গ্লুকোজে রূপান-রিত করে। আর গ্লুকোজ থেকেই তৈরি হয় আমাদের দেহের শক্তি।। ভিটামিন বি খাদ্যবিপাক প্রক্রিয়াকেও সক্রিয় করে। মাশরুম কোলেস্টোরাল শূন্য। এতে কার্বোহাইড্রেটের পরিমাণও খুবই সামান্য। এতে যে এনজাইম ও ফাইবার আছে তা দেহে উপসি'ত বাকি ব্যাড কোলেস্টোরালের বসতিও উজাড় করে দেয়।
মাশরুম একমাত্র সবজি ও দ্বিতীয় খাদ্য উপাদান (প্রথম কডলিভার ওয়েল) যাতে ভিটামিন ডি ভোজ্য আকারে পাওয়া যায়। অন্য কোনো খাদ্য উপাদানে ভোজ্য আকারে ভিটামিন ডি পাওয়া যায় না।
মাশরুমকে চিকিৎসকেরা এক সময় প্রাকৃতিক ইনসুলিন, আবার আরেক সময় প্রাকৃতিক অ্যান্টি বায়োটিক হিসেবে গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। দেহের সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণ ও দেহের বিভিন্ন ধরনের ইনফেকশন দূর করতে ভালো কাজ করে মাশরুম।
মাশরুমে আছে প্রচুর ক্যালসিয়াম, আয়রন, পটাসিয়াম ও সেলেনিয়াম। সেলেনিয়াম উপাদানটি শুধু মাছেই পাওয়া যায়। যারা পুরোপুরি নিরামিষভোজি তারা মাশরুমের মাধ্যমে এই উপকারী উপাদানটি গ্রহণ করতে পারেন। মাশরুমে আরো আছে এরগোথিওনেইন নামে এক ধরনের শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা মানবদেহের জন্য ঢালের মতো কাজ করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কার্যকারিতা বাড়ানোর পাশাপাশি অনেক ব্যাকটেরিয়াও দমন করে।
 ·  Translate
3
2
Add a comment...
 
ভিটামিন ডি’র অভাবে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে .
রক্তে ভিটামিন ডি সঠিক মাত্রায় থাকলে মৃত্যুঝুঁকি অর্ধেক কমে যায়। আর এর ঘাটতিতে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে। নতুন এক গবেষণায় এ কথা বলা হয়েছে।
এক হাজার রোগী নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে কানসাস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা এ তথ্য পেয়েছেন।
গবেষণায় দেখা গেছে, ৭০ শতাংশ রোগীই ভিটামিন ডি-এর অভাবে ভুগছেন এবং তাদের ক্ষেত্রে নানা রকম হৃদরোগের ঝুঁকিও বেশি।
ভিটামিন ডি-এর অভাবে মানুষের মৃত্যুঝুঁকি বাড়ে প্রায় দ্বিগুণ। অন্য দিকে, দেহে প্রয়োজনীয় মাত্রায় ভিটামিন ডি থাকলে মৃত্যুঝুঁকি ৬০ শতাংশ কমে।
‘ইউনিভার্সিটি অব কানসাস হসপিটাল অ্যান্ড মেডিক্যাল সেন্টার’ -এর অধ্যাপক ডা: জেমস এল ভাসিক বলেন, ‘ভিটামিন ডি-এর ঘাটতির কারণে হৃদরোগের ঝুঁকি থাকে কি না তা গবেষণা করাটাই ছিল আমাদের লক্ষ্য। কিন' গবেষণায় এ ঝুঁকি অনেকটাই বেশি প্রমাণিত হওয়ায় আমরা অবাক হয়েছি।’
 ·  Translate
4
Add a comment...
 
মাছ ত্বকের সৌন্দর্য বাড়ায়
ত্বকের সৌন্দর্য সবারই কাম্য। খাদ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, সুন্দর দেহ এবং উজ্জ্বল ও সজীব ত্বকের জন্য না খেয়ে থাকার দরকার নেই বরং সঠিক খাদ্য সঠিক পরিমাণে খেলেই তা সম্ভব। আপনার ত্বককে সুন্দর রাখতে প্রতিদিন অল্প পরিমাণে দধি খেতে পারেন। এর উপকারী ব্যাকটেরিয়া ত্বককে উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে। এ ছাড়াও তেলসমৃদ্ধ সার্ডিনসহ বিভিন্ন মাছ ত্বকের সৌন্দর্য বাড়ায়। ছোট মাছ বা সামুদ্রিক মাছ খেলে ত্বকের প্রদাহ কমে। এতে ওমেগা-৩ থাকায় ভাঁজ পড়া থেকে ত্বককে রক্ষা করে। এ ছাড়া স্ট্রবেরি বা ব্লুস্ট্রবেরিও খাওয়া যায়। স্ট্রবেরির অ্যান্টি অক্সিডেন্ট জাতীয় পদার্থ ত্বকের সজীবতা বৃদ্ধিতে বেশ সহায়ক ভূমিকা রাখে।
 ·  Translate
3
Add a comment...
 
বাংগালী মানুষ হতে অনেক দেরী। ভারতীয় মুভিতে বাংলাদেশকে পচায় কিছু রাখে না, কিন্তু আমরা এই হিন্দী মুভি দেখা ছাড়তে পারলাম না। তার উপর ২৩ শে ডিসেম্বর থেকে আমাদের সিনেমা হল গুলাতে নাকি হিন্দী মুভি দেখানোর অনুমতি দিয়েছে সরকার। কই যাই, মনে হয় লাত্থি মাইরা উরায় দেই হাসিনা-খালেদারে। শেয়ার করুন বেশী করে। জনসচেতনতাই একমাত্র পথ এখন।http://www.facebook.com/photo.php?v=10150612277938776
 ·  Translate
4
Add a comment...
8
1
Mir Abdul Latif's profile photo
 
সাংঘাতিক ভাল!
Add a comment...
In his circles
1,685 people
Have him in circles
1,240 people
Jubayer Mumin's profile photo
fakhar uddin's profile photo
 
ঘৃতকুমারীর অনেক গুণ
ঘৃতকুমারীতে আছে অনেক গুণ। এটি ব্যবহারের ফলে ব্রণ বা ত্বকের কালো দাগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ঘৃতকুমারীর শরবত পানে অনেক সমস্যা থেকে উদ্ধার পাওয়া যায়। এর শরবতের মধ্যে রয়েছে মিনারেল, অ্যামিনো অ্যাসিড এবং নানা প্রকার পুষ্টিকর উপাদান।
ঘৃতকুমারীর শরবত হজমশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্যও দূর করে থাকে। ডায়রিয়া সারাতেও এটি বেশ উপকারী। এর এক গ্লাস শরবত পানে অবসাদ এবং ক্লান্তি থেকে মুক্তি মেলে। ঘৃতকুমারীর শরবত প্রতিদিন পানের ফলে শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি পায় এবং স্বাস্থের সঠিক ওজন বজায় রাখে। এটি দেহের সাদা কোষের শক্তি বৃদ্ধি করে, যা আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। দেহের হাড়ের পুরনো ব্যথা উপশমেও এটি বেশ সহায়ক।
 ·  Translate
4
Abdul Rakib Rabbe's profile photo
 
valo tatto
Add a comment...
 
দাঁতের সুস্থতায় করণীয়
নানা কাজের ভিড়ে অনেকেই দাঁতের পরিচর্যায় সময় পান না। অথচ এটা গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। অবহেলায় সারা জীবন ভুগতে হয়। যেকোনো কিছু খাওয়ার পর ভালোমতো কুলি করা উচিত। দিনে দুইবার অত্যন্ত যত্নসহকারে দাঁত ব্রাশ করা উচিত। সকালে ঘুম থেকে উঠার পর পরই দাঁত ব্রাশ না করে নাশতার পরে করলে ভালো হয়। কারণ সাধারণত নাশতার পর আমরা অনেকক্ষণ কিছুই খাই না। ফাস্টফুড ক্ষয়সহ দাঁতে নানা ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করে। দুধসহ কিছু কিছু খাবার দাঁতের জন্য উপকারী। এগুলো নিয়মিত গ্রহণ করা উচিত। কোনো সমস্যা অনুভব না করলেও আপনার উচিত হবে বছরে একবার ডেন্টিস্টের কাছে যাওয়া।
 ·  Translate
5
Add a comment...
 
রক্ত বাড়ায় কলিজা

রক্ত তৈরির জন্য জরুরি উপাদান হলো আয়রন। এই আয়রন প্রচুর পরিমাণে রয়েছে গরু বা ছাগলের কলিজায়। রক্তের প্রধান উপাদানের নাম লোহিত রক্ত কণিকা (আরবিসি)। এই কণিকার পরিমাণ বৃদ্ধি ও পুষ্ট করার জন্য আয়রনের গুরুত্ব অপরিহার্য। বড় কোনো অপারেশনের পরে, প্রচুর রক্তক্ষরণের পর, গর্ভাবস্থায়, সন্তান জন্মদান বা মাতৃদুগ্ধদানকালীন কলিজা যথেষ্ট উপকারী। তবে হূৎপিণ্ডের বাইপাস সার্জারি বা রিং পরানো, উচ্চ রক্তচাপজনিত রক্তক্ষরণের পরে কলিজা খাওয়া অনুচিত। কারণ, এতে দেহে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। শিশু থেকে ৩০-৩৫ বছর বয়স্ক মানুষের জন্য যথেষ্ট দরকারী হলো কলিজা। এতে ভিটামিন ‘এ’, আমিষ রয়েছে প্রচুর পরিমাণ। এই উপাদানগুলো দেহের বর্ধনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। উচ্চমাত্রার ভিটামিন বি-সিক্সেরও বসতি কলিজায়। শীতকালীন ঠান্ডা-কাশির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে কলিজার ভিটামিন ‘এ’।
আমাদের শরীরের শিরা-উপশিরার ভেতর দিয়ে রক্ত প্রবাহিত হয়। এই শিরা- উপশিরার দেয়ালকে প্রসারিত করে কলিজার কোলাজেন ও ইলাস্টিন নামের উপকরণ। সেলেনিয়াম নামের আরও একটি জরুরি উপাদানের বসবাস এই কলিজায়। সেলেনিয়াম হ্রাস করে কোলন ক্যানসারের পরিমাণ, শ্বাসকষ্ট বা হাঁপানি, ইনফেকশন, শরীরের জয়েন্টে ব্যথা, কৃমির পরিমাণ। ঠান্ডাজনিত জ্বরে, টনসিলাইটিস, সর্দি সৃষ্টিকারী ভাইরাস নামক জীবাণুর বিরুদ্ধে কাজ করে জিংক। কলিজায় রয়েছে মাত্রাধিক জিংক। তাই ছোটদের জন্য মুরগির কলিজাও উপকারী। উচ্চ রক্তচাপ, চল্লিশের ওপরে বয়স, ডায়াবেটিক ও রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি—এমন ব্যক্তিদের জন্য কলিজা বাদ দেওয়াই উত্তম।
 ·  Translate
5
ডাক্তার সাহেব's profile photoprince raihan's profile photoZissan Alam's profile photo
3 comments
 
চেস্টা করব। :) । ধন্যবাদ ।
 ·  Translate
Add a comment...
 
সকালের নাশতায় ডিম খান
যুক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীরা বলেছেন, সকালের নাশতায় নিয়মিত ডিম খেলে স্মৃতিশক্তি বাড়ে। তারা ডিমে ‘কোলেন’ নামে নতুন এক ধরনের পুষ্টিকর উপাদান খুঁজে পেয়েছেন, যা স্মৃতিশক্তিকে শাণিত করে।
বোস্টন ইউনিভার্সিটির স্কুল অব মেডিসিনের গবেষক রোডা আউ ও তার দল দশ বছর ধরে ডিমের পুষ্টিগুণ নিয়ে কাজ করছেন। তারা দশ বছরে এক হাজার ৪০০ প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের ওপর একটি গবেষণা চালানোর পর একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন।
তাদের গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত সকালের নাশতায় ডিম খাওয়ার অভ্যাস করেছেন তাদের স্মৃতিশক্তি অন্যদের চেয়ে অনেক তুখোড়। গবেষকেরা বলেছেন, বয়স বাড়ার সাথে সাথে মসি-ষ্কে যে পরিবর্তন আসে কোলেন সমৃদ্ধ খাবার তা রুখে দেয়। তাই বয়স বাড়লে দেহে ও ত্বকে পরিবর্তন এলেও মসি-ষ্কে তেমন বিশেষ কোনো পরিবর্তন আসে না।
অস্ট্রেলিয়ার নিউজ ওয়েবসাইট নাইনএমএসএন-এ প্রকাশিত এই প্রতিবেদনটিতে বলা আরো হয়েছে, সিমের বীজ, সামুদ্রিক মাছ, যকৃত ও দুগ্ধজাত খাবারেও কোলেন রয়েছে।
 ·  Translate
6
naushad karim's profile photo
 
Sunday ho ya Monday roz khao anday!!!
Add a comment...
 
ঠাণ্ডা থেকে বাঁচতে
শীত বাড়ার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ে সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত হওয়ার যন্ত্রণা। চিকিৎসকেরা জানান, তাপমাত্রা কমার সাথে সাথে অনেকের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ায় এই সমস্যার সৃষ্টি হয়। এই যন্ত্রণা থেকে রক্ষা পেতে অনেকেই নিজেই ওষুধ কিনে সেবন করেন। এটা ঠিক নয়। অন্তত অ্যান্টিবায়োটিক কোনোভাবেই চিকিৎসকের ব্যবস'াপত্র ছাড়া গ্রহণ করা যাবে না। তবে কিছুটা স্বস্তি পেতে পারেন গরম পানি ব্যবহার করে। এ ছাড়া প্রচুর গরম গরম স্যুপ পান করবেন। গরম স্যুপে কাঙ্ক্ষিত শক্তির পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয়। ঠাণ্ডা প্রতিরোধে মধুও বেশ কার্যকর। গরম পানির ভাপ নিলে কফের কষ্ট লাঘব হতে পারে।
 ·  Translate
3
Jakie-ul Hassan's profile photo
 
great help for me. cold always suffering for me.
Add a comment...
People
In his circles
1,685 people
Have him in circles
1,240 people
Jubayer Mumin's profile photo
fakhar uddin's profile photo
Education
  • Bangabandhu Sheikh Mujib Medical University
    present
Basic Information
Gender
Male
Story
Introduction
আমি ইন্টারনেটের পোকা । ফেজবুকের পাশাপাশি গুগল প্লাসেও একাউন্ট চালু করলাম। মেডিকেলের ছাত্র আমি এখানে মূলত ডাক্তার ও ডাক্তারি নিয়ে কিছু কার্যক্রম চালাব তাই আপনাদের বিরক্ত করতে আমার এখানে পদার্পণ । যদি কারো সামান্য উপকারে আসতে পারি সেটাই আমার সেরা অর্জন বলে আমার কাছে মনে হয় ।
Places
Map of the places this user has livedMap of the places this user has livedMap of the places this user has lived
Previously
Bangladesh - Dhaka