Profile cover photo
Profile photo
Amitava Ray
Photographer of nature culture travel stock photography @Rayphoto
Photographer of nature culture travel stock photography @Rayphoto
About
Posts

Post has attachment
Add a comment...

Post has attachment
Chitkul is the last inhabited village near the Indo-China border, in Kinnaur district of Himachal Pradesh. Indian road ends here. During winters, the place mostly remains covered with the snow and the inhabitants move to lower regions of Himachal. Chitkul…
Add a comment...

Post has attachment
Add a comment...

Post has attachment

Post has attachment
Tabo is a small town in the Lahaul and Spiti district on the banks of the Spiti River in Himachal Pradesh India. The town lies on the road between Rekong Peo and Kaza, the sub-divisional headquarters of Spiti. The town surrounds a Buddhist monastery…
Add a comment...

Post has attachment
Add a comment...

Post has attachment
মঙ্গলের সুবর্ণ প্রতিযোগ কালই: বর্তমান নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: এই মুহূর্তে মঙ্গল গ্রহ পৃথিবীর কাছে আছে এবং উজ্জ্বল অবস্থায় আকাশে দৃশ্যমান। পৃথিবী সূর্যকে তার কক্ষপথে ঘুরতে সময় নেয় ৩৬৫ দিন। আর মঙ্গল গ্রহ সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে সময় নেয় ৬৮৭ দিন। দুই গ্রহের এই প্রদক্ষিণের সময়ের হিসেব ধরলে মঙ্গল গ্রহ ও সূর্যের মাঝখানে পৃথিবী চলে আসে ৭৮০ দিন অন্তর (প্রায় প্রতি দু’বছর দু’মাস অন্তর)। অর্থাৎ পৃথিবী মাঝে এবং সূর্য-মঙ্গল পৃথিবীর দু’দিকে থাকলে, মঙ্গল গ্রহ পৃথিবীর সব থেকে কাছে আসে। এই অবস্থানকে বলা হয় মঙ্গলের প্রতিযোগ। সেই সময় তাকে উজ্জ্বল অবস্থায় দেখা যায়। কলকাতার পজিশনাল অ্যাস্ট্রোনমি সেন্টারের অধিকর্তা সঞ্জীব সেন বলেন, আগামীকাল যেদিন শতাব্দীর দীর্ঘতম পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ হবে, সেদিন মঙ্গলের এই প্রতিযোগও ঘটবে। এর ফলে লালগ্রহ মঙ্গলকে উজ্জ্বল অবস্থায় আকাশে দেখা যাবে। গ্রহণযুক্ত চাঁদের খুব কাছাকাছি শুক্রবার রাতে মঙ্গলগ্রহকে দেখা যাবে। তবে মঙ্গলগ্রহ পৃথিবীর সবথেকে কাছে আসবে আগামী ৩১ জুলাই। সেদিন মঙ্গলের সঙ্গে পৃথিবীর দূরত্ব কমে হবে প্রায় ৫ কোটি ৭৬ লক্ষ কিলোমিটার।

জ্যোতির্বিজ্ঞানের মতে, মঙ্গলগ্রহ পৃথিবীর ঠিক বাইরের কক্ষেই অবস্থিত। এর পরিমাপ পৃথিবীর প্রায় অর্ধেক। মঙ্গলের সঙ্গে পৃথিবীর দূরত্ব সবথেকে কাছে প্রায় ৫ কোটি ৫০ লক্ষ কিলোমিটার হয়। মঙ্গল আর পৃথিবীর সবথেকে বেশি দূরত্ব হতে পারে প্রায় ৪০ কোটি কিলোমিটার। অর্থাৎ সারাবছর ধরে মঙ্গলগ্রহ পৃথিবী থেকে বিভিন্ন দূরত্বে অবস্থান করে এবং খুব বেশি উজ্জ্বল দেখা যায় না।

সঞ্জীববাবু আরও বলেন, এর আগে ২০০৩ সালের আগস্ট মাসে মঙ্গলের যে প্রতিযোগ হয়েছিল তা ছিল বিগত ৬০ হাজার বছরে মঙ্গলগ্রহের পৃথিবীর সবথেকে কাছে থাকা। তখন দুই গ্রহের মধ্যে দূরত্ব কমে হয়েছিল প্রায় ৫ কোটি ৫৪ লক্ষ কিলোমিটার। গত ১৫ বছরের মধ্যে অর্থাৎ ২০০৩ সালের পরে মঙ্গল পৃথিবীর এত কাছে আসছে আগামী ৩১ জুলাই। মঙ্গলকে এই মুহূর্তে জুলাই মাসের শেষভাগে এবং আগস্ট মাসের প্রথমভাগে প্রায় সারারাত উজ্জ্বল অবস্থায় দেখা যাবে।
মঙ্গলগ্রহ উপবৃত্তাকার কক্ষপথে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে। এরফলে মঙ্গল তার কক্ষপথে একবার সূর্যের নিকটতম বিন্দুতে (পেরি হিলিয়ন বা অনুসূর) থাকে এবং একবার দূরতম বিন্দুতে (এপেহিলিয়ন বা অপসূর) থাকে। মঙ্গল তার কক্ষপথে সূর্যের কাছাকাছি বা অনুসূর বিন্দুতে থাকার কাছাকাছি সময় যদি প্রতিযোগ হয়, তাহলে মঙ্গল পৃথিবীর আরও কাছে অবস্থান করে। একে বলা হয় সুবর্ণ প্রতিযোগ। এবার ২৭ জুলাইয়ের প্রতিযোগ অবশ্যই সুবর্ণ প্রতিযোগ। কারণ মঙ্গল তার কক্ষপথে অনুসূর বিন্দুতে থাকবে ১৬ সেপ্টেম্বর। মঙ্গলের এই সুবর্ণ প্রতিযোগ ১৫ বা ১৭ বছর অন্তর ঘটে। ২০০৩ সালের আগস্ট মাসে যে প্রতিযোগ হয়েছিল, সেটিও অবশ্যই সুবর্ণ প্রতিযোগ ছিল। পরবর্তী সুবর্ণ প্রতিযোগ হবে ২০৩৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর। তখন মঙ্গল ও পৃথিবীর দূরত্ব কমে হবে ৫ কোটি ৬৯ লক্ষ কিলোমিটার।
http://bartamanpatrika.com/detailNews.php?cID=15&nID=120606
Bartaman Patrika
Bartaman Patrika
bartamanpatrika.com
Add a comment...

Post has attachment

Post has attachment
Tabo #monastery Golden Stupa is situated in the #Spiti valley (an isolated valley with a total population of 10,000) above #Tabo village on the left bank of the Spiti River. The valley as such is delimited by Ladakh in the north, Lahaul and Kullu districts in the west and south-east respectively, and by Tibet and the Kinnaur district in the east. While Tabo village is in a bowl-shaped flat #valley, the monastery is also in the bottom of the valley, unlike other monasteries in the valley, which are perched on hills; in the past the region was part of Tibet.It is located in a very arid, cold and rocky area at an altitude of 10,010 feet. Above the monastery there are a number of caves carved into the cliff face and used by monks for meditation. There is also an assembly hall in the caves and some faded paintings on the rock face.

Camera Exif Info =
Aperture: ƒ/13
Credit: @AmitavaRay
Taken: 9 June, 2018
Copyright: © 2018 RayPhoto.IN | all rights reserved
Exposure bias: -1EV
Focal length: 22mm
ISO: 100
Shutter speed: 1/320s
Add a comment...

Post has attachment
Tabo Monastery or Tabo Chos-Khor Monastery is located in the Tabo village of Spiti Valley, Himachal Pradesh, northern India. It was founded in 996 CE in the Tibetan year of the Fire Ape. by the Tibetan Buddhist lotsawa (translator) Rinchen Zangpo (Mahauru Ramabhadra), on behalf of the king of western Himalayan Kingdom of Guge, Yeshe-Ö. Tabo is noted for being the oldest continuously operating Buddhist enclave in both India and the Himalayas. A large number of frescoes displayed on its walls depict tales from the Buddhist pantheon. There are many priceless collections of thankas (scroll paintings), manuscripts, well-preserved statues, frescoes and extensive murals which cover almost every wall. The monastery is in need of refurbishing as the wooden structures are aging and the thanka scroll paintings are fading. After the earthquake of 1975, the monastery was rebuilt, and in 1983 a new Du-kang or Assembly Hall was constructed. It is here that the 14th Dalai Lama held the Kalachakra ceremonies in 1983 and 1996. The monastery is protected by the Archaeological Survey of India, as a national historic treasure of India.

Camera Exif Info =
Aperture: ƒ/5.6
Credit: @AmitavaRay
Taken: 9 June, 2018
Copyright: © 2018 RayPhoto.IN | all rights reserved
Exposure bias: -1EV
Focal length: 17mm
ISO: 2800
Shutter speed: 1/50s
Add a comment...
Wait while more posts are being loaded