Profile cover photo
Profile photo
Engineer Jamal Official
1,962 followers -
I am a graduate Engineer from Islamic University of Technology (IUT), Organization of the Islamic Conference (OIC), Gazipur, Bangladesh. My major was Mechanical Engineering Specialization in Automotive Engineering.
I am a graduate Engineer from Islamic University of Technology (IUT), Organization of the Islamic Conference (OIC), Gazipur, Bangladesh. My major was Mechanical Engineering Specialization in Automotive Engineering.

1,962 followers
About
Posts

Post has attachment
চা শ্রমিকদের দুঃখ-কথা!

চায়ের জন্য বিখ্যাত মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলা। আর দেশের সবচেয়ে বেশি চা বাগান রয়েছে বলে শ্রীমঙ্গল চায়ের রাজধানী হিসেবে পরিচিত।

শ্রীমঙ্গলের চা শ্রমিকরা প্রতিদিন সকালে চা-পাতা ভাজা আর দুপুরে শুকনা রুটি খেয়ে টানা আট ঘণ্টার পরিশ্রম শেষে ২৩ কেজি চা-পাতা সংগ্রহের পরেও মজুরি হিসেবে পাচ্ছেন মাত্র ৮৫ টাকা। এভাবেই তারা দিনের পর দিন জীবন কাটাচ্ছেন। ফলে পর্যাপ্ত খাবারের অভাবে শ্রমিক ও তাদের পরিবারের সদস্যরাও অপুষ্টিতে ভুগছে। আর তাদের সন্তানরা ভালোভাবে বেড়ে উঠতে পারছে না।

শ্রীমঙ্গলের চা বাগান ঘুরে চা শ্রমিকদের কাছ থেকে জানা যায় তাদের যত দুঃখ কথা।

চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ স¤পাদক রাম ভজন বলেন, চা শ্রমিকদের বেতন কাঠামো অত্যন্ত অমানবিক। এই বেতন দিয়ে তারা ধুঁকছে কিন্তু একে বেঁচে থাকা বলে না। তবে আমরা এ নিয়ে মালিকপক্ষের সঙ্গে দরকষাকষিতে যাচ্ছি। শিগগিরই সর্বনিম্ন চারজন সদস্যের একটি পরিবারের জীবনের ব্যয়ভারের কথা চিন্তা করে ২৩০ টাকা মজুরি ধরে শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানাতে যাচ্ছি।

জানা যায়, গান্ধিছড়া গ্রামে মোট ৩৭৪ জন শ্রমিক আছে। আট বাই আটের একটি ঘরে দুটি করে রুম। এর এক কোনে রান্নাঘর। এর মধ্যেই গাদাগাদি করে থাকছেন সাত-আট সদস্যের এক-একটি পরিবার।

শ্রমিকরা জানান, দিন শেষে একজন চা শ্রমিক ৮৫ টাকার মধ্যে ৩৫ টাকা দিয়ে দুই কেজি চাল, ১০ টাকা দিয়ে ১০০ গ্রাম মসুর ডাল, ১০ টাকার হলুদ-মরিচ ক্রয় করেন। বাকি ৩০ টাকা তেল, নুন বা অন্য কিছুতে খরচ হয়। তারা দুই সপ্তাহে একবার বাজারের সবচেয়ে কম দামি সিলভারকার্প মাছ কিনে খাওয়ার সুযোগ পান। মাসে একবার বাসায় মেহমান আসলে চা শ্রমিকরা তাদের ঘরের মোরগ-মুরগি খাওয়ান। কিন্তু এটিও তাদের জন্য বিলাসিতা।

তারা আরো বলেন, চা বাগানে তারা সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত টানা আট ঘণ্টা কাজ করেন। আর এ আট ঘণ্টা কাজ করার পর প্রতিদিন একজন শ্রমিককে ২৩ কেজি চা-পাতা সংগ্রহ করতে হয়। এর পরেই তাকে ৮৫ টাকা মজুরি দেওয়া হয়। এছাড়া ২৩ কেজির ওপর প্রতি কেজি বাড়তি চা পাতার জন্য একজন শ্রমিক সাড়ে তিন টাকা করে পান। আর যদি চা পাতা ২০ কেজির কম হয় তাহলে আশি টাকার কম করে মজুরি দেওয়া হয়। আবার কিছু বাগানে দিনে ২৩ কেজি করে চা-পাতা সংগ্রহের কথা থাকলেও শ্রমিকদের দিয়ে ২৪ কেজি করে পাতা সংগ্রহের বিনিময়ে মজুরি দেওয়া হচ্ছে।
Photo

Post has attachment
অন্তর (মন) নরম করার কিছু আমলঃ

(১) মনোযোগ সহকারে কোরান তেলাওয়াত করা ও অর্থসহ বুঝে পড়া।

(২) ক্বারীদের কোরান তেলাওয়াত অন্তর দিয়ে শ্রবণ করা।

(৩) জামাতে নামায পড়ার জন্যে আগে আগে মসজিদে গিয়ে অপেক্ষা করা। এ সময় সুন্নত সালাত পড়ে আল্লাহর কাছে দুয়া করা বা কোরান তেলাওয়াত করা।

(৪) সৎ ও জ্ঞানী লোকদের সাহচর্য গ্রহণ করা।

(৫) কোরান ও সুন্নাহর অনুসারী আলেমদের বই-পুস্তক পড়া ও ওয়াজ-লেকচার শোনা।

(৬) বয়ষ্ক, দুর্বল ও অসুস্থ রোগীদের দেখতে যাওয়া এবং তাদের তুলনায় আল্লাহ আমাকে অনেক ভালো রেখেছেন এই চিন্তা করে আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করা।

(৭) দ্বীনি মজলিসে বসা।

(৮) আল্লাহর নেয়ামতগুলো নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করা ও তার জন্যে আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ থাকা।

(৯) আল্লাহর জন্যে ভালোবাসা এবং আল্লাহর জন্যে ঘৃণা করা।

(১০) পাপী ও নির্বোধ লোকদের বর্জন করা। অবশ্য দাওয়াতের উদ্দেশ্যে তাদের সাথে মেশা যাবে।

(১১) বিদআতী ব্যক্তি বা আলিমদের সংশ্রব থেকে দূরে থাকা এবং তাদের সাথে তর্ক পরিহার করা।

(১২) পবিত্র কোরআনের সুরা বা ফযীলতপূর্ণ আয়াতগুলো মুখস্থ করা।

(১৩) সর্বদা আল্লাহকে স্বরণ রাখা।

(১৪) নবী সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম এর জীবনী ও হাদীসগুলো পড়া, সেইগুলো নিয়ে আলোচনা করা।

(১৫) নির্জনে আল্লাহকে স্বরণ করা এবং নিজের পাপের জন্যে কান্নাকাটি করা।

(১৬) অনর্থক কথা ও কাজ বর্জন করা।

(১৭) বাবা-মায়ের সাথে ভালো ব্যবহার করা। তাদের প্রয়োজন পূরণ করা।

(১৮) মুসলমানদের প্রতি হিংসা বিদ্বেষ বর্জন করা এবং সবসময় তাদের প্রতি সদয় থাকা, তাদের জন্য কল্যানকামী হওয়া।

(১৯) পাপকাজ ও পাপের আসর বর্জন করা।

(২০) গীবত থেকে দূরে থাকা।

(২১) মৃত্যুকে স্বরণ করা এবং পরকালের আশায় জীবন কাটানো।

(২২) দুনিয়া নিয়ে মত্ত না থাকা, পরকালকেই জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বানানো।

(২৩) মানুষকে খুশি করার চাইতে আল্লাহকে খুশি করাকে প্রাধান্য দেওয়া।

(২৪) ক্ষুদার্ত মানুষকে খাদ্য দেওয়া।

(২৫) দান করা।

(২৬) অশ্লীল কথা না বলা, যারা বলে তাদেরকে বর্জন করা।

(২৭) তাক্বদীরকে মেনে নেওয়া, এবং আল্লাহর উপর সন্তুষ্ট ও কৃতজ্ঞ থাকা।

(২৮) আল্লাহর উপর ভরসা করা।

(২৯) আল্লাহর উপর, পরকালের উপর বিশ্বাসকে দৃঢ় করা।

(৩০) বিপদগ্রস্থ ও অসহায় মুসলিমদের জন্যে দুয়া করা।

আল্লাহ, আমাদের সকলকে এই কাজগুলো শতভাগ পালন করার তৌফিক দান করুন। আমিন।
Photo

Post has attachment
Life of Bongobondhu Sheikh Mujibur Rahman-In short
Early Life:
Born on March 17, 1920 at Tungipara in Gopalgonj district, Sheikh Mujibur Rahman was the third child of Sheikh Lutfur Rahman and Saira Begum. He studied at the Islamia College and graduated from Dhaka University. At 18, Mujib married Fazilatunne...

Post has attachment
জেনে নিন প্রতিদিন পান খেলে কী হয়?
অনেকেই খেয়ে উঠে পান মুখে পুরে ফেলেন। এতে নাকি তৃপ্তি মেলে ১০০ শতাংশ। কিন্তু জানেন কী? এই পান শুধু তৃপ্তিই দেয় না, বরং স্বাস্থ্যের পক্ষেও বেশ উপকারি এই পান।
১) পান পাচন শক্তি বাড়ায়।
২) গলার সমস্যায় পান খুব উপকারী। আওয়াজ পরিস্কার করতে পান সাহায্য করে।
৩) রক...

Post has attachment
যারা রাত্রে বা ভোরে বাথরুমে যাবার জন্য ঘুম থেকে ওঠেন তাদের জন্য ডাক্তারদের একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপদেশঃ

আমরা প্রায়ই শুনতে পাই একেবারে সুস্থ একজন মানুষ রাতের বেলা হঠাৎ মারা গেছেন। এটার একটা কারন হচ্ছে রাতে বাথরুমে যাবার জন্য ঘুম ভেঙ্গে গেলে আমরা তাড়াহুড়ো করে হঠাত উঠে দাঁড়িয়ে পড়ি যা ব্রেইনে রক্তের প্রবাহ হঠাত কমিয়ে দেয়। এটা আপনার ইসিজি প্যাটার্নও বদলে দেয়।

হুট্ করে ঘুম থেকে উঠেই দাঁড়িয়ে পড়ার দরুন আপনার ব্রেইনে সঠিক ভাবে অক্সিজেন পৌছাতে পারেনা, যার ফলে হতে পারে হার্ট এ্যাটাকের মত ঘটনাও।

ডাক্তাররা ঘুম থেকে উঠে বাথরুমে যাবার আগে সবাইকে 'দেড় মিনিট' সময় নেয়ার একটি ফর্মুলা দিয়েছেন। এই দেড় মিনিট সময় নেয়াটা জরুরি কারন এটা কমিয়ে আনবে আপনার আকস্মিক মৃত্যুর সম্ভাবনা। হঠাত এই উঠে পড়ার সময়ে এই দেড় মিনিটের ফর্মুলা বাঁচিয়ে দিতে পারে আমাদের জীবন।

১।যখন ঘুম থেকে উঠবেন, হুট করে না উঠে মিনিমাম তিরিশ সেকেন্ড বিছানায় শুয়ে থাকুন।

২।এরপর উঠে বিছানায় বসে থাকুন তিরিশ সেকেন্ড।

৩।শেষ তিরিশ সেকেন্ড বিছানা থেকে পা নামিয়ে বসুন।

এই দেড় মিনিটের কাজ শেষ হবার পর আপনার ব্রেইনে পর্যাপ্ত পরিমানে অক্সিজেন পৌছাবে যা আপনার হার্ট এ্যাটাকের ঝুঁকি একদম কমিয়ে আনবে।

খুবই গুরুত্তপুর্ন এই স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্যটি ছড়িয়ে দিন আপনার পরিবার, বন্ধু এবং পরিচিত লোকজনের মাঝে। নিজে এই ফর্মুলাটি মেনে চলুন এবং অন্যদেরকেও মানতে বলুন।

মনে রাখবেন যেকোন বয়সের মানুষের ক্ষেত্রেই এমন দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই সাবধান থাকতে হবে সবাইকেই।
জনস্বার্থে শেয়ার করুন৷
নিয়মিত স্বাস্থ্য টিপস পেতে অামাদের পেইজে লাইক দিন৷
Photo

Post has attachment
জেনে নিন ইসলামে জন্মদিন পালনের বিধান কি?
আসসালামু আলা ই কুম , প্রশ্নঃ ইসলামে জন্মদিন পালন করা জায়েজ আছে কি না ? যদি থাকে তাহলে কিভাবে পালন করতে হবে শরিয়ার দলিলসহ বিষয়টি জানালে উপকৃত হব । بسم الله الرحمن الرحيم وعليك السلام و رحمة الله و بركاته উত্তরঃ বর্তমানে জন্মদিন পালন বলতে বুঝায় মাসের যে তারিখ...

Post has attachment
হাশরেরদিন শেষবিচারের পরে আল্লাহ জান্নাতীদেরকে জান্নাতে দেবেন আর, জাহান্নামীদেরকে জাহান্নামে দেবেন। তখন একজন ঘোষণাকারী, জান্নাতী ও জাহান্নামীদেরকে ডাক দিয়ে বলবেন, তোমরা এই দিকে দেখো। তখন জান্নাত ও জাহান্নামের মাঝখানে একটা সাদা ভেড়াকে দেখিয়ে বলা হবে, তোমরা কি জানো এটা কি? সকলেই বলবে, হ্যা জানি, এটা হচ্ছে “মৃত্যু”। তখন সেই ভেড়াকে জবাই করে ফেলা হবে।

এইভাবে ভেড়ারূপী মরণকে জবাই করে আল্লাহ মৃত্যুকে হত্যা করে ফেলবেন। তখন বলা হবে, আজকের পর থেকে আর কোন মরণ থাকবেনা।

সুতরাং, যারা জান্নাতে যাবে, তারা চিরকাল জান্নাতে আনন্দ-উল্লাসের মাঝে থাকবে। আর যারা জাহান্নামে যাবে তারা আযাব-গজবে যত কষ্ট পাক কিন্তু কোনদিন একেবারে মরবে না। ভেড়ারূপী মৃত্যুকে হত্যা করে ফেলার এই ঘোষণার কারণে জান্নাতীরা আরো বেশি আনন্দিত হবে, কারণ তাদের আনন্দের জীবন কখনো শেষ হবেনা। আর এই ঘোষণা জাহান্নামীদের জন্যে আরো বড় বিপদ ও দুঃখ নিয়ে আসবে। কারণ, জাহান্নামে যতই আগুনে পুড়ুক বা যতই যন্ত্রনাদায়ক শাস্তির ফলে যতই কষ্ট ভোগ করুক, তার ফলে তাদের মৃত্যু হবেনা।
(বুখারীঃ ৪৪৫৩, মুসলিমঃ ২৮৪৯)

হে আল্লাহ! সেই কঠিন দিন তুমি আমাদের জন্যে সহজ করো। হে আমাদের রব! সেইদিন আপনি দয়া করে আমাদেরকে অনন্ত সুখের জীবন দান করুন এবং অনন্তকালের জাহান্নামের শাস্তি থেকে আপনি আমাদেরকে, আমাদের পরিবারে সকলকে, সমস্ত মুসলমান ভাই ও বোনদেরকে হেফাজত করুন। আমিন ইয়া রাব্বাল আ’লামীন।
Photo

Post has attachment
সুন্দর স্বপ্ন গুলো ভাঙ্গার জন্য বেশি কিছুর প্রয়োজন নেই,
কাছের মানুষের একটুখানি অবহেলাই যথেষ্ট...!!
Photo

Post has attachment
‘বন্ধু’ হল এমনই একটা স্বচ্ছ আয়না যাকে বলতে হয় না, বোঝাতে হয় না, অনুরোধ করতে হয় না কিংবা প্রয়োজন হয় না উপদেশ দিয়ে মনের কথা প্রকাশ করার।
পারস্পরিক সমঝোতা, শ্রদ্ধাবোধ এবং ভালোবাসার অগাধ বিশ্বাসের সেতুবন্ধন হল বন্ধুত্ব।

বন্ধুত্বের দুয়ার এতটাই বিশাল, বয়স, ধর্ম, গোত্র-হিংসা, স্বার্থপরতা, লোভ, সবকিছুর ঊর্ধ্বে পবিত্র এ সম্পর্ক হয়ে থাকে বাবা-মা, ভাইবোন, সহপাঠী, সহকর্মীর সঙ্গে; এমনকি তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগে বিশ্বের অন্য প্রান্তে না দেখা কারও সঙ্গে।

বন্ধুত্ব আকাশের মতোই অসীম আর সাগরের ঢেউয়ের মতো উচ্ছল যার কাছে গেলে সব কষ্ট ধুয়ে যায়।

দিন তারিখ ঠিক করে বন্ধুত্তে বিশ্বাস করিনা।
বন্ধু হবে নিশি রাতে কল করবো,
বন্ধু বলবে আসতেছি দোস্ত,
সকাল দুপুর রাত ঝড় তুফানে বন্ধু পাশে থাকবে সেই তো বন্ধু।
আমি যখন তখন। করবো জালাতন।
না করলে আরো বেশি করবো এটাই বন্ধুত্ত।
যদি তারিখ ঠিক করে বন্ধুত্তের হাজিরা দিতে হয়, তাহলে আদালত আর বন্ধুর মাঝে পার্থক্য কি??
Photo

Post has attachment
জেনে নিন ল্যাপটপের চার্জ সাশ্রয়ের সহজ কিছু কৌশল!
বর্তমান তথ্যপ্রযুক্তির যুগে মানুষের নিত্যসঙ্গী ল্যাপটপ। তবে তাতে বাধা হয়ে দাঁড়ায় চার্জ শেষ হয়ে যাওয়ার সমস্যা। কিছু অত্যাধুনিক ফিচার এবং উন্নত ব্যাটারি সমৃদ্ধ ল্যাপটপে ৮ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাটারি ব্যাকআপ পাওয়া সম্ভব হলেও অধিকাংশ ল্যাপটপের ক্ষেত্রেই গড়ে ৩-৪ ঘন্ট...
Wait while more posts are being loaded