Profile cover photo
Profile photo
Pi Labs Bangladesh Ltd.
88 followers -
An R&D Based Technology Company.
An R&D Based Technology Company.

88 followers
About
Posts

Post has attachment
একটা দেশ তখনই বিশ্ব দরবারে মাথা তুলে দাড়াতে সক্ষম হয় যখন তারা শিক্ষা, গবেষণা, প্রযুক্তিতে এগিয়ে যায়। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য আমাদের দেশ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে গবেষণার দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে। আমাদের ব্যবসা বানিজ্য অনেকাংশে আমদানি নির্ভর। কিন্তু কাউকে না কাউকে স্রোতের উলটো দিকে চলতেই হবে দেশকে এগিয়ে নিতে হলে, তাই এই শত প্রতিকূলতার মাঝেও পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিমিটেড স্বপ্ন দেখে প্রযুক্তি খাতে গবেষণায় আমাদের দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার। পাই ল্যাবস এগিয়ে যাচ্ছে, সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তি, মেধা কাজে লাগিয়ে পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিঃ আবিষ্কার করছে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স সামগ্রি। আমাদের লক্ষ্য বাংলাদেশ প্রযুক্তিক্ষাতে আমদানি নির্ভর নয় বরং বাংলাদেশ হবে রপ্তানি নির্ভর।
#PiLabs
Photo
Add a comment...

Post has attachment
বদলে যাচ্ছে মার্কেটিং কৌশল!!! পাশাপাশি আপনার পন্যের প্রচারণার ধরণ বদলাচ্ছে কি??? ভেবে দেখুন তো ঢাকা কিংবা জেলা শহরের ব্যস্ত সড়কে বিশাল বিল বোর্ডে আপনার পণ্যের বা
দৃষ্টিনন্দন আধুনিক প্রচারণা সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করছে!!! সবার মুখে মুখে ঘুরে ফিরছে আপনার পণ্যের কথা, প্রতিষ্ঠানের কথা!!! হ্যাঁ, আপনার এই স্বপ্নময় ভাবনাকেই বাস্তবে রূপ দিতে পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিমিটেড এক যুগেরেও বেশি সময় ধরে কাজ করছে বুয়েটের একদল দক্ষ প্রকৌশলী নিয়ে। তারহীন এই বিল বোর্ড থাকবে অনলাইন Online Digital Display. তাঁর মানে হচ্ছে আপনি অনেক দূর থেকে display এর উপরে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারবেন। যেকোনো তথ্য, উপাত্ত প্রদর্শনের জন্য এটা জাদুকরী। সবচেয়ে মজার ব্যপার হচ্ছে এটি বাংলাতে লেখা দেখাতে পারে। তাই মার্কেটিং দুনিয়ার এই বদলে যাওয়া মিছিলে যোগ দিতে এই ডিসপ্লের ব্যবহার আপনার জন্য একটা ভিন্ন মাত্রা নিয়ে আসবে। বদলে যাওয়া এই মিছিলে যোগ দিতে যোগাযোগ করুণ আমাদের সাথে।
#PiLabs #RnD
Photo
Add a comment...

Post has attachment
চলতে হয় সময়ের সাথে। তা না হলে সময় আপনাকে পিছনে ফেলে অনেক দূরে চলে যাবে। আর পরে রইবেন জীর্ণ শীর্ণ আপনি। এই বিশ্বাসকে, দর্শনকে বুকে ধারণ করে দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে সাথে নিয়ে চলছে পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিমিটেড। পাই ল্যাবস মূলত কাজ করে গবেষণা ও উন্নয়ন নিয়ে। কোন প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন অনুযায়ী গবেষণায় তাঁদের সারথি হয়েও আমরা কাজ করি। এছাড়াও আমাদের রয়েছে নির্দিষ্ট কিছু পণ্য বা সেবা। যেমন পাই ল্যাবস এর তৈরি করা বিজ্ঞানবাক্স, Vehicle Tracking System, Smart Car Parking system এর ফলাফল ও জনপ্রিয়তা সর্বজন স্বীকৃত। সময় দ্বারা পরিক্ষিত। আমরা মনে প্রানে স্বপ্ন দেখি এবং বিশ্বাস করি আপনাদের সাথে নিয়েই আমরা গড়ব অন্য রকম বাংলাদেশ।
#PiLabs #RnD
Photo
Add a comment...

Post has attachment
পরিবেশকে বাঁচাতে পলিথিন ব্যাগের বন্ধের দাবি আমাদের অনেক দিনের। নানা প্রতিবন্ধকতায় এ দাবি আশার মুখ দেখেনি। তবে নতুন এক সুঃসংবাদ নতুন আশার সঞ্চার করেছে। পাট থেকে পলিথিন ব্যাগ উদ্ভাবন করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন প্রখ্যাত বিজ্ঞানী, পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক মহাপরিচালক ও বাংলাদেশ জুটমিল করপোরেশনের বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা ড. মোবারক আহমদ খান।পাট থেকে তৈরি এই পলিথিন ব্যাগের নাম হবে ‘সোনালী ব্যাগ’। এটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিজের পছন্দের করা নাম।এর ফলে দেশে পাটের বহুমুখী ব্যবহার বাড়বে। দেশে পাটের চাহিদা বাড়বে। কৃষক এর ন্যায্যমূল্য পাবে। পাট যে বাংলার স্বর্ণসূত্র এর প্রমাণও মিলবে। এ কারণে সরকারিভাবে পাটের পলিব্যাগ উৎপাদনকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। চাহিদা যখন বেড়ে যাবে বেসরকারি খাতেও এই প্রযুক্তি ছেড়ে দেওয়া হবে। যাতে দেশে পাটের বহুমুখী ব্যবহার বাড়ে। একই সঙ্গে প্লাস্টিকের পলিথিনের পরিবর্তে পাটের তৈরি পলিব্যাগের ব্যবহার বাড়ে।
#Positive #Bangladesh
Photo
Add a comment...

Post has attachment
বাবা নিয়ে হুমায়ূন আহমেদের এক বিখ্যাত কথা আছে। পৃথিবীতে হাজারো খারাপ মানুষ আছে, কিন্তু একটাও খারাপ বাবা নেই। বাবারা যেমন কখনও খারাপ হয়না , বাবারা কখনও হারতেও শিখেনা জীবন যুদ্ধে। সম্প্রতি এমনই এক রিক্সাচালক গর্বিত বাবার প্রশস্ত হাঁসি আমাদের সবার হৃদয় ছুঁয়ে গেছে। নিজে রিক্সাচালক, তবে সন্তান তার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েট। এ হাঁসি যেন পৃথিবীর সমস্ত বাবাদের প্রতিনিধিত্ব করছে। সন্তানের হাত ধরে এগিয়ে যাক বাংলাদেশ। ভালো থাকুক পৃথিবীর প্রত্যেকটি বাবা।
#Positive #Bangladesh
Photo
Add a comment...

Post has attachment
গ্রিক পৌরাণিক কাহিনিমতে, প্যান্ডোরাই প্রথম নারী, যাঁকে দেবতাদের দেবতা জিউস তৈরি করেছিলেন। প্যান্ডোরাকে একটা বাক্স দিয়ে পৃথিবীতে পাঠানো হয়েছিল, আর বলা হয়েছিলো সুখে-শান্তিতে জীবনযাপন করতে চাইলে বাক্সটা যেন সে না খোলে। কিন্তু কী আছে সেখানে, এই কৌতুহল প্যান্ডোরার পক্ষে চেপে রাখা সম্ভব হয় না, একদিন বাক্সটার মুখ খোলে সে, আর সেখান থেকে বেরিয়ে যায় রোগ-ব্যাধি-হিংসা-ক্রোধ-ঈর্ষা সহ পৃথিবীর মানুষের জন্য যাবতীয় ‘খারাপ’ সবকিছু। কিছুক্ষনের মধ্যেই প্যান্ডোরা জারের মুখ বন্ধ করে ফেলে, কিন্তু তখন আর কোন ‘খারাপ’ বেরিয়ে যেতে বাঁকি থাকে না, পড়ে থাকে শুধু ‘আশা’।
প্যান্ডোরার বাক্স থেকে বেরিয়ে আসা সমস্ত খারাপ জিনিস আমরা আজ বয়ে বেড়াচ্ছি। ক্ষুধা, তৃষ্ণা, ভয়, জরা আজ আমাদের তাড়িয়ে বেরায়। আধুনিক বিজ্ঞান অবশ্যই প্যান্ডোরার বাক্স থেকে বেরিয়ে আসা সমস্ত খারাপকে বাক্সবন্দী করে একদিন গভীর সমুদ্রে নিক্ষেপ করবে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অদূর ভবিষ্যতে পৃথিবী বিনষ্টকারী সমস্ত খারাপকে জাদুঘরে পাঠাবে। ক্ষুধা, রোগ, শোক একদিন হবে রূপকথার গল্পের মত।
#Technology #Innovation
Photo
Add a comment...

Post has attachment
বাংলাদেশ। এক শান্তিময় শক্তিশালী শব্দের নাম। বাংলাদেশ। নিজেকে খুঁজে পাওয়া এক শব্দের নাম। তাইতো হাজারো সমস্যার মাঝে , প্রতিকূলতার মাঝে যখন কোনো ইতিবাচক গল্প বন্দনা আমাদের কানে আসে সেই বাস্তবতা আন্দোলিত করে আমাদের অন্তরাত্মা। ইদানীং কালে এমনই এক ইতিবাচকতার গল্প হচ্ছে উন্নয়নশীল ৪৮ টি দেশের মধ্যে ওষুধ উৎপাদনে শীর্ষস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। শুধু তাই নয় এক দুই তিন করে ধীরে ধীরে ওষুধ রফতানিতেও শীর্ষস্থানে পৌছে যাচ্ছে বাংলাদেশ।বর্তমানে ওষুধ উৎপাদনে বাংলাদেশে কাজ করে যাচ্ছে দেশি বিদেশি ২ শতাধিক কোম্পানি। বর্তমানে ১৬০টি দেশে বাংলাদেশ থেকে ওষুধ রফতানি হচ্ছে। বাংলাদেশে এখন ২৫৭ কোম্পানি ওষুধ উৎপাদন করে থাকে। এসব কোম্পানি প্রতিবছর ২৪ হাজার ব্র্যান্ডের ওষুধ উৎপাদন করে থাকে। বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে বছরে ২৫ হাজার কোটি টাকার ওষুধ দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে যাচ্ছে। আর এ রফতানির চিত্রও দ্রুত বাড়ছে। বিগত পাঁচ বছরে এ খাতে রফতানি বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে।বর্তমানে রফতানি বাণিজ্যে বাংলাদেশে আধিপত্য করছে পোশাক শিল্প। কিন্তু ভবিষ্যতে সে চিত্র পাল্টে যেতে পারে। ওষুধ রফতানি পোষাক খাতকেও ছাপিয়ে যাবে বলে আশা করা যায়।
#Positive #Bangladesh
Photo
Add a comment...

Post has attachment
এশিয়া মহাদেশে উদ্ভাবনের দিক থেকে বাংলাদেশ সবচেয়ে পিছিয়ে আছে, গ্লোবাল ইনোভেশন ইনডেক্স ২০১৮ তে এই রকম তথ্যই উঠে এসেছে। আর সবার আগে আছে সিঙ্গাপুর। সবচেয়ে কম উদ্ভাবনী দেশের কাতারে বাংলাদেশ ছাড়াও আছে কাজাখস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও পাকিস্তানের নাম।
কিন্তু এই পরিস্থিতি কেন তৈরি হল? এমন নয় যে আমাদের মেধাবী ছেলেমেয়ের অভাব, টাকার অভাব। আমাদের দেশের সন্তানেরা গণিতে সোনা জয় করে আনছে অনেক দেশকে পিছনে ফেলে, বিশ্বের অনেক উঁচু পর্যায়ে কাজ করছে আমাদের সোনার ছেলেরা। স্ট্যানফোর্ড, অক্সফোর্ড , হার্ভার্ড , এমএইটি সহ বিশ্বের অনেক নামি দামি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে শিক্ষকতা করছে আমাদেরই দেশের সূর্য সন্তানেরা। আমাদের দেশটা অসংখ্য মেধাবীতে আশীর্বাদপুষ্ট। পরিশ্রমী, স্বপ্নবাজ, উদ্যমী তরুণে পূর্ণ।
বলার অপেক্ষা রাখে না যে টেকসই উন্নয়নের (Sustainable Development) জন্য গবেষণা ও উদ্ভাবন হলো অন্যতম শর্ত। তাই আমাদের নেতিবাচক এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরনের পথ নিয়ে ভাবতে হবে। গবেষণাতে মনোনিবেশ করতে হবে। শিক্ষাক্ষেত্র থেকে শুরু করে জাতীয় জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে গবেষণাকে উৎসাহিত করতে হবে। গবেষণা ক্ষেত্রে বার্ষিক ব্যয় বাড়াতে হবে। শিক্ষাক্ষেত্র বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যলয় গুলোতে গবেষণাকে বাধ্যতামূলক করার পাশাপাশি প্রচলিত গবেষণা পদ্ধতি ঢেলে সাঁজাতে হবে। পাই ল্যাবস বাংলাদেশ লিমিটেড বাংলাদেশের গবেষণাকে তরান্বিত করতে অনেক বছর ধরেই নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
Photo Source: Internet
Photo
Photo
9/25/18
2 Photos - View album
Add a comment...

Post has attachment
তিন তরুণ গবেষক আহসান-উল কবির, ফাহিম ভুইয়া ও নাজমুস সাকিব বানিয়েছেন প্যারালাইসিস রুগীদের জন্য এমন এক ধরণের হুইল চেয়ার যা চলবে চোখের ইশারায়। এরা তিনজনই ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ এর ছাত্র। অভিনন্দন তাঁদের জন্য।
ইতিবাচকতা আসলে একটা অভিলাষ। আপনি এই দেশের সবকিছুতেই ইতিবাচকতা খুঁজবেন নাকি নেতিবাচকতা খুঁজবেন নির্ভর করছে আপনার, আমার মানসিকতার উপর। আমাদের দেশের সন্তানেরা গনিতে সোনা জয় করে আনছে অনেক দেশকে পিছনে ফেলে, বিশ্বের অনেক উঁচু পর্যায়ে কাজ করছে আমাদের সোনার ছেলেরা। স্ট্যানফোর্ড, অক্সফোর্ড , হার্ভার্ড , এমএইটি সহ বিশ্বের অনেক নামি দামি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে শিক্ষকতা করছে আমাদেরই দেশের সূর্য সন্তানেরা। আমাদের দেশটা অসংখ্য মেধাবীতে আশীর্বাদপুষ্ট। পরিশ্রমী, স্বপ্নবাজ, উদ্যমী তরুণে পূর্ণ । চলুন পাশে থেকে তাঁদের উৎসাহ দেই। তাঁদের চলার পথকে ত্বরান্বিত করি, সহজ করি।
video Source: Internet
#positive #Bangladesh
Irfan Khan
Irfan Khan
facebook.com
Add a comment...

Post has attachment
প্রত্যেকটা মানুষকেই সৃষ্টিকর্তা অনেক যত্ন নিয়ে বানিয়েছেন। বানানোর পরেও দায়িত্ব ছেড়ে দেন নি। পৃথিবীতে পাঠানোর পরেও নানাভাবে তাঁকে সাপোর্ট দিয়েছেন। একটা মানুষ যখন পৃথিবীতে আসে, তাঁর চারপাশের মানুষ হৃদয় দিয়ে তাঁকে ভালবাসে, ধারন করে, লালনপালন করে। কিন্তু সেই মানুষটাই যখন আত্মহত্যা করে , সেই বিশ্রী বাস্তবতা , সেই হৃদয় নিংড়ানো কুৎসিত তাড়িত আবেগ মনে হয় কোন ভাষা দিয়ে প্রকাশ করা যায় না। যাবেই বা কি করে, এই পরিস্থিতির সাথে মুখোমুখি করানোর জন্য তো সৃষ্টিকর্তা তাঁকে বানায় নাই। এই ভয়াবহ অথচ শক্ত বাস্তবতার জন্য তাঁর বাবা মা তো কখনও কোন মানসিক প্রস্তুতি রাখে না। তবে কেন কাপুরুষের মত এই চলে যাওয়া? মানুষের কোন সমস্যাই তাঁর জীবন থেকে বড় হতে পারে না। অসম্ভব। কাপুরুষের মত চলে যাওয়া কোন সমস্যার সমাধান হতে পারে না। কখনই না। কাপুরুষোচিত এই সমস্ত চিন্তা ভাবনা যদি কখনও আপনার মাথায় আসে, চলে যাবার পর আপনার মায়ের মুখটার কথা ভাববেন। আপনার বাবার আপনাকে নিয়ে সপ্নময় মুখটার কথা ভাববেন।
ভালো থাকুক প্রত্যেকটা মায়ের সন্তান। জীবন তাঁর মঙ্গলময় বাহু দিয়ে তাঁদের আলিঙ্গন করুক।
#Change
Photo source: internet
Photo
Add a comment...
Wait while more posts are being loaded